রাকীবুল ইসলাম রাকীবের ক্রিটিকে- আম্মা নদী

রাকীবুল ইসলাম রাকীবের ক্রিটিকে- আম্মা নদী

আম্মা নদী

“মাদরেসা

আমি মাদরেসা ভালা ফাই
তলা আল বাদরু আলাইনার শান হুনি
মুহাম্মদ আইরা
লগে সাহাবী আবু বকর
মদীনার বালুত ফাও রাখল টায়ার্ড উটনি
শাদা রুমাল উড়াইয়া খবুতর ছাও গুইন্তে গান গার
ওয়াজাবাশ শুকরু আলাইনা মা দা’আ লিল্লাহি দা”

[সদ্য প্রকাশিত #আম্মানদী বইয়ের একখান পোয়েম, পোয়েট আবু তাহের তারেক ভাইয়ের বই থেকে]

পোয়েট্রির এই বইখান আমি পিডিএফ ফরমেটেই পড়ছিলাম গত দুইহাজার বিশ সালে। আমার অনেক মুহূর্তকে খুব জটিলতা ছাড়াই, দায়ভার ছাড়াই কান্ধে চাপিয়ে না দিয়েই আম্মানদী একটা অসাধারণ কাজ করছে। মাথাতে পোয়েমরে হুবহু ইয়াদ রাখা যায় না সংশ্লিষ্ট যেই মনোভাব আমার ভিতর ছিলো সেটারে রি-থটের আওতায় ফেলছে আম্মা নদী। 

খুব ছোটো ছোটো স্রোত হয়ে আম্মা নদীর প্রতিটা পোয়েম বাঙলা ভাষার যে ভাষা বৈচিত্র‍্য ও সহনশীলতা, তার কূলে আছড়ে পড়ছে অতিধীর লয়ে।  আমার অবলোকনে এতে রিশতাটা মজবুত হয়েছে। কীসের রিশতার কথা বলছি এখানে? রিশতা মাত্রই আম্মা আর মদীনা আমার কাছে। সেই রিশতা মুস্তফা জানে রহমত হয়ে আল্লার সহিত মিলিত হয়। 

তবে আম্মানদী একটা ভাষিক সংকটের ভেতর দিয়ে যাওয়াকে নিজের প্রত্যয় হিশাবে নির্ধারণ করেছে। সেখানে সিলেটি ভাষা একটা চ্যালেঞ্জ না বরঙ দরদ হইয়া পোয়েটের দীলে রাজ করছে। আর সেই রাজের নমুনা এর সুর আর লিরিকে স্ফুটিত।  

সেখানে বিচ্ছেদ আর মোলাকাতের সমূহ সম্ভাবনা নাকচ করা হয়নি। সাদরে মারহাবা জানানো হয়েছে শুভ এমন সবকিছুকেই। মদীনায় মুস্তফার আগমনের চিত্রায়ন যেমন আছে, সাথে আছে বাঙলায় হাওড়, নদীতীরে বিচ্ছেদে ভারাক্রান্ত রুহের বিবিধ আশ্র‍য়ের নজির। 

সেই নজির পাঠ করেই দেখুন না-   বাঙালি পুরুষ, রমণীসহ সকলেই।  আবু তাহের তারেকের পোয়েট্রিতে প্রশান্তি পাইতে পারেন!

বইটি পাবেন রকমারি তে। রকমারিতে বইটি পেতে ক্লিক করুন।
আম্মা নদী- রকমারি ডট কম

লিখাটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Date/Time:

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed By Invention-It